ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর, ২০২১ ()
শিরোনাম
Headline Bullet সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে সম্প্রতি সমাবেশ ও শোভাযাত্রা Headline Bullet রাজবাড়ী ডিবিপুলিশের অভিযানে হেরোইনসহ এক মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার Headline Bullet শেখ রাসেল মেমোরিয়াল সমাজ কল্যাণ সংস্থার- রাসেল দিবস পালিত Headline Bullet বালিয়াকান্দিতে ভগ্নিপতির ভ্যান পিছলে সড়কের পাশে পড়ে এক শিশুর মৃত্যু Headline Bullet বালিয়াকান্দি থানায় মসজিদের ইমাম ও ধর্মীয় নেতাদের সাথে মতবিনিময় Headline Bullet কুষ্টিয়ায় ওয়ান বাংলাদেশের উদ্যোগে শেখ রাসেল দিবস উদযাপিত Headline Bullet কুষ্টিয়ায় কৃষকলীগের আয়োজনে শান্তি শোভাযাত্রা ও সম্প্রীতি সমাবেশ অনুষ্ঠিত Headline Bullet কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে ঝুলন্ত লাষ উদ্ধারঃ Headline Bullet পৌরসভার উদ্যোগে শেখ রাসেল দিবস পালিতঃ Headline Bullet রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি থানা পুলিশের আয়োজনে শেখ রাসেল দিবস পালিত

রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দিতে দুই উপজেলার যোগাযোগ সড়কে হেলে পড়েছে ত্রাণের ব্রীজ

এস,এম রাহাত হোসেন ফারুক, রাজবাড়ী প্রতিনিধি ঃ রাজবাড়ী সদর উপজেলার সাথে বালিয়াকান্দি উপজেলার কয়েকটি গ্রামের যোগাযোগের মাধ্যম সড়কের নির্মাণকৃত ত্রাণের ব্রীজ হেলে পড়েছে।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অধিদপ্তর সুত্রে জানাগেছে, বালিয়াকান্দি উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নের সাঙ্গুরা-রতনদিয়া সড়কের কেদার হালটে দুযোর্গ ব্যবস্থা অধিদপ্তরের সেতু/কালভার্ট কর্মসূচি ২০১৫-১৬ অর্থবছরের ১৭ লক্ষ ৯৩ হাজার ৬৭৯ টাকা ব্যায়ে ২২ ফুট দৈঘের্যর ব্রীজটি নির্মাণ করা হয়। কাজটি করেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক এহসানুল হাকিম সাধণের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স জিএম ট্রেডার্স।

সাঙ্গুরা গ্রামের বিষ্ণু শেখ, মফিজুল মিয়া, মোস্তাফিজুর রহমান, ওবায়দুল শেখ, কামাল হোসেন, রোকন মিয়া বলেন, জামালপুর ইউনিয়নের সাঙ্গুরা, নলিয়া, সন্ধ্যা, নটাপাড়া, রতনদিয়া, রাজবাড়ী সদর উপজেলার কোলারহাট, সায়েস্তাপুর, উদয়পুর, মুচিদাহ গ্রামের সাথে যোগাযোগের মাধ্যম হিসেবে এ সড়কটি। ইতিপুর্বে কালভার্ট নির্মাণ করা হলেও পানির চাপের কারণে তা ভেঙ্গে যায়। পরে এখানে ব্রীজ নির্মাণ করা হয়। ব্রীজ নির্মাণের শুরুতেই নিন্মমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহার করায় ওই বছরই ফাটল দেখা দেওয়াসহ ব্রীজের নিজ থেকে বালু সরে যায়। এ বছর বর্ষা মৌসুম শুরু হলে ব্রীজের দু,পাশের সংযোগ সড়কটি পানির চাপে ভেঙে গেছে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। সেই সাথে ব্রীজটি হেলে পড়ে। পানি থাকাকালীন সময়ে এ এলাকার মানুষের দুই সেট পোশাক নিয়ে বের হতে হয়। একসেট দিয়ে ভিজে সাতরিয়ে সড়ক পারাপার করতে হয়। এতে করে পথচারীসহ সকল যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকায় দুভোর্গে পড়তে হচ্ছে হাজারও মানুষকে।

তারা আরো বলেন, ব্রীজটির সংযোগ সড়ক ভেঙ্গে যাওয়ার কারণে ও ব্রীজটি হেলে পড়ার ফলে শত শত হেক্টর জমির ফসল প্রায় ১০ কিলোমিটার ঘুরে বাড়ীতে তুলতে হবে। সাঙ্গুরা নিম্নাঞ্চল ও কৃষিপ্রধান এলাকা হওয়ায় হাজারও কৃষকের ঘরে ফসল তোলার একমাত্র পথ এটি। রাস্তা ও ব্রিজটির এমন হাল হওয়ায় দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে কৃষকদের।

স্থানীয় কৃষকরা আরো বলেন, ‘এ মাঠে পিয়াজ, রসুন, ধান, পাটের ব্যাপক আবাদ হয়। ব্রীজটির সংযোগ সড়ক ভেঙ্গে যাওয়ায় ও হেলে পড়ার কারণে হিসেবে বলেছেন ব্রীজটি নির্মাণ করা মোটেও সঠিক হয়নি। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের টাকাটা এমনি দিয়ে দিলেই ভালো হতো। নৌকা পারাপারের মাধ্যমে যাতায়াত করা সম্ভব হতো।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা নাসরিন সুলতানা বলেন, আমি যোগদানের আগেই ব্রীজটি নির্মাণ করা হয়। তবে ব্রীজের ফাটল দেখা দেওয়াসহ হেলে পড়ার বিষয়টি উর্ধতন কতর্ৃপক্ষকে অবগত করেছি। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স জিএম ট্রেডার্সের জামানত ফেরত বন্ধ করা হয়েছে। জনসাধারণের চলাচলের লক্ষে নতুন করে ব্রীজ নির্মাণের প্রস্তাবনা পাঠানো হয়েছে।

বালিয়াকান্দি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা মোঃ আবুল কালাম আজাদ বলেন, নির্মাণের এক বছর পরই ‘ব্রিজটিতে ক্রুটি দেখা দেয়। এখন হেলে পড়েছে। তবে এবারের বর্ষার পানির বৃদ্ধির পরই ব্রিজটি একবারেই ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে গেছে।


     এই বিভাগের আরো খবর