ঢাকা, সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ()
শিরোনাম
Headline Bullet বরগুনার তালতলীতে ইউপি উপনির্বাচন আ’লীগের একাধিক ও বিএনপি’র একক প্রার্থী মাঠে: Headline Bullet রাজবাড়ীতে ভাবীকে কুপিয়ে হত্যা মামলায় দেবরের যাবৎজ্জীবন কারাদন্ড: Headline Bullet নেত্রকোনা জেলা প্রশাসক কর্তৃক সরকারি শিশু পরিবার পরিদর্শন Headline Bullet রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দিতে জমি নিয়ে বিরোধে মারপিটে মহিলাসহ ৩জন আহত: Headline Bullet কুষ্টিয়ার হিরা জামে মসজিদের অজুখানা ও প্রসাবখানার বেহাল অবস্থা Headline Bullet বাংলাদেশ-ভারতের সেই কৃত্রিম দেয়াল আর নেই-ওবায়দুল কাদের Headline Bullet বাজারে হঠাৎ ধানের সরবরাহ কমে যাওয়ায় দাম বেড়েছে চালের Headline Bullet কুষ্টিয়ায় আরও এক জমি জালিয়াতের হোতা হাজি মফিজুল ইসলাম Headline Bullet কুষ্টিয়ায় প্রকাশ্য দিবালোকে মালিকানা জমির মার্কেট ভেঙ্গে দখল.৫ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ৫ কোটি টাকার ক্ষতিপূরণ Headline Bullet পচা পেঁয়াজের ট্রাক ফিরিয়ে নিল ভারত

তিন কিশোরী ধর্ষনঃধর্ষকসহ দুইসহযোগী গ্রফতারঃ

চট্টগ্রাম মহানগরীর খুলশী থানা এলাকায় তিন কিশোরী ধর্ষণের শিকার হয়েছে। এই ঘটনায় পুলিশ দুইজন ধর্ষক ও ধর্ষণে সহযোগিতার অভিযোগে একজনসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে।
গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- সেগুনবাগান ৫নম্বর লেইনের কামাল উদ্দিনের মোহাম্মদ লিটন (৩৭), লালখান বাজার তুলাপুকুর পাড় এলাকার শাহজাহান সরদারের ছেলে সোহেল রানা রাজু (২৮)। এ ছাড়া ধর্ষণে সহযোগিতার অভিযোগে গ্রেপ্তার হয়েছে ওমর ফারুক (৪৬) নামের আরো একজন।

দুই ধর্ষকসহ তিনজনকে গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মহানগর পুলিশের বায়েজিদ জোনের সহকারী কমিশনার পরিত্রাণ তালুকদার। তিনি বলেন, তিনজনকে গ্রেপ্তার এবং একটি মোটরসাইকেল জব্দ করা হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃতদের আদালতে সোপর্দ করে রিমান্ড জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আবেদন করা হয়েছে। ধৃত সোহেল রানা বাস চালক। লিটন আগে বাস চালাতেন। এখন একটি বাসের মালিক।

পুলিশ জানায়, গত ২৯ জুলাই বায়েজিদ থানার ধ্বনি পাহাড় এলাকার তিন কিশোরী পরিবারের সঙ্গে রাগ করে বাসা থেকে বেরিয়ে যায়। তারা ঘুরতে ঘুরতে রাতে পৌঁছে খুলশী থানার টাইগারপাস এলাকায়। সেখানে পৌঁছানোর পর তিন কিশোরীকে দেখে তাদের সঙ্গে কথা বলে ভাব জমায় একজন। পরে তাদের রাতে থাকার ব্যবস্থা করে দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে খুলশী আবাসিক এলাকার তিন নম্বর রোডের একটি বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানে নেওয়ার পর দুই যুবক মিলে তিনজনকে ধর্ষণ করে এবং ভোরে সেখান থেকে পালিয়ে যায়।
পরদিন তিন কিশোরী বাসায় গিয়ে পরিবারকে এই বিষয়ে জানায়। শেষে পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। ওই মামলার তদন্ত পর্যায়ে পুলিশ ধর্ষণের অভিযোগে দুজনকে গ্রেপ্তার করে। আর ধর্ষণে সহযোগিতার অভিযোগে ওই বাড়ির প্রহরীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ওই বাড়িতে প্রহরী একা থাকেন এবং লিটন আগে থেকেই ওই বাড়িতে গাড়িচালক হিসেবে চাকরি করত। সেই সুবাদে তাদের পরিচয় ছিল। ঘটনার রাতে নৈশ প্রহরীর মোবাইল ফোনের কললিস্টের সূত্র ধরে ধর্ষকদের শনাক্ত করতে সক্ষম হয় পুলিশ।



     এই বিভাগের আরো খবর