ঢাকা, সোমবার, ১৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২০ ()
শিরোনাম
Headline Bullet ভালবাসা দিবস উপলক্ষে এতিম খানা ও বৃদ্ধাশ্রম এ খাবার বিতরনে কুষ্টিয়া জেলা ছাত্রলীগ Headline Bullet কাজী আরেফ রাজনীতি করার টাকা যোগাতেন টিউশনি করে,স্মারক বক্তকৃতায় আলোচকরা Headline Bullet ক্ষমা চেয়ে আবেদন করলে খালেদার প্যারোল বিবেচনাযোগ্য- স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী Headline Bullet খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে কুষ্টিয়া জেলা বিএনপি’র বিক্ষোভ Headline Bullet কুষ্টিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত Headline Bullet কুষ্টিয়া জেলায় রেকর্ড পরিমাণ জমিতে পেঁয়াজ চাষ Headline Bullet কুষ্টিয়ায় প্রথম আলোর আয়োজনে ফিজিক্স প্রতিযোগিতা Headline Bullet আজ জাতীয় নেতা কাজী আরেফসহ ৫ নেতার ২১ তম মৃত্যুবার্ষিকী Headline Bullet কুষ্টিয়ায় পলাশ হত্যা মামলায় চার আসামীর যাবজ্জীবন Headline Bullet কুষ্টিয়ার ডিভাইন ইন্টেরিয়র ডিজাইন ফার্ম বন্ধে প্রাণনাশের হুমকি

গাইবান্ধায় বগি রেখেই রওনা দিল ট্রেন, অতঃপর…

গাইবান্ধায় মাঝপথে ১২টি বগি রেখেই আন্তনগর লালমনি এক্সপ্রেস ট্রেন ছেড়ে যাবার ঘটনা ঘটেছে। এর ফলে বড় ধরণের দুর্ঘটনা ঘটতে পারতো বলে সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন। আজ রবিবার ট্রেনটির নতুন একটি বগির হুক (দুটি বগির সংযোগস্থল) ভেঙে যাওয়ায় গাইবান্ধা ও কুপতলা রেলওয়ে স্টেশনের মাঝামাঝি এ ঘটনা ঘটে। পরে অবশ্য ইঞ্জিন ফিরে গিয়ে বগিগুলো গাইবান্ধা স্টেশনে নিয়ে আসে। তবে এ ঘটনায় হতাহতের কোনো ঘটনা ঘটেনি। 

গাইবান্ধা রেলওয়ে স্টেশন সূত্র জানায়, আন্তনগর লালমনি এক্সপ্রেস ট্রেনটি রবিবার সকাল ৯টা ৫০ মিনিটে লালমনিরহাট থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। গাইবান্ধা স্টেশনে পৌঁছার সঠিক সময় ১১টা ১৮ মিনিট।

সূত্র জানায়, লালমনি এক্সপ্রেসের ইঞ্জিনের সাথে পুরাতন ৪টি বগি এবং এরপর নতুন ১২টি বগি সংযুক্ত ছিল। ট্রেনটি গাইবান্ধার বামনডাঙ্গা স্টেশনে যাত্রাবিরতি শেষে গাইবান্ধার উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। পরে কুপতলা স্টেশন অতিক্রম করে গাইবান্ধা স্টেশনে যাওয়ার পথে হঠাৎ করে পুরাতন ৪টি বগির সাথে নতুন ১২টি বগির সংযোগস্থলের হুক ভেঙে যায়। এ সময় ট্রেনচালক বিষয়টি টের পেলেও তাকে বাধ্য হয়ে পুরাতন ৪টি বগি নিয়েই ট্রেন চালিয়ে যেতে হয় ও ট্রেনটি গাইবান্ধা স্টেশনে পৌঁছায়।

এ সময় ফেলে যাওয়ো বগিগুলো আপনা আপনি গাইবান্ধা রেলওয়ে স্টেশনের এক কিলোমিটার উত্তরে ভেড়ামারা রেল ব্রিজের কাছে থেমে গেলে যাত্রীরা ট্রেন থেকে নেমে পড়েন। এ সময় বগিগুলোতে থাকা যাত্রীরা আতঙ্কে চিৎকার শুরু করেন। পরে গাইবান্ধা স্টেশনের কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা ট্রেনচালককে সাথে নিয়ে লালমনি এক্সপ্রেসের ইঞ্জিন ঘুরিয়ে নিয়ে গিয়ে নতুন বগিগুলো আবার গাইবান্ধা রেলওয়ে স্টেশনে নিয়ে যাওয়া হয়। এরপর হুক ভেঙে যাওয়া বগিটি গাইবান্ধা রেলওয়ে স্টেশনে রেখেই অন্যান্য বগিগুলো নিয়ে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা দেয় ট্রেনটি। 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক গাইবান্ধা রেলওয়ে স্টেশনের এক কর্মচারী জানান, নতুন বগির হুকের সাথে পুরাতন বগির হুক যুক্ত হওয়ার কথা নয়। হুক লাগানোর জায়গায় অতিরিক্ত ঢিল থাকায় হুকটি লাফালাফি করে। এতে করে হুক ভেঙে যেতে পারে। তিনি বলেন, এর ফলে বড় দুর্ঘটনার সম্ভাবনা ছিল। 

গাইবান্ধা রেলওয়ে স্টেশনের ভারপ্রাপ্ত স্টেশন মাস্টার ধীরেন্দ্র নাথ দাস বলেন, বামনডাঙ্গা থেকে ছাড়ার পর ট্রেনটি ১১টা ৫০ মিনিটে কামারপাড়া স্টেশন ছেড়ে কুপতলা স্টেশন অতিক্রম করে গাইবান্ধার দিকে আসে। আর ১২টা ৩০ মিনিটে শুধু ইঞ্জিনসহ চারটি বগি গাইবান্ধা স্টেশনে পৌঁছায়। ট্রেনটি স্টেশনে পৌঁছার পর চালককে জিজ্ঞাসা করা হয় অন্য বগিগুলো কোথায়।

তখন চালক জানান, হুক ভেঙে যাওয়ায় সেগুলো পেছনে রেখে আসতে হয়েছে। পরে লোকজন নিয়ে গিয়ে অন্য বগিগুলোও নিয়ে আসা হয়। এতে ট্রেনটি করে ১ ঘণ্টা ১০ মিনিট বিলম্ব হয়। পরে দুপুরে ১টা ৪০ মিনিটে গাইবান্ধা রেলস্টেশন থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা দেয় ট্রেনটি।


     এই বিভাগের আরো খবর