ঢাকা, বুধবার, ৫ আগস্ট, ২০২০ ()
শিরোনাম
Headline Bullet সাদুল্লাপুরে কৃষককে হাতে কলমে শিক্ষা দিচ্ছেন উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তাঃ Headline Bullet গাইবান্ধায় বিএসসি ইঞ্জিনিয়ার শিক্ষার্থী হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধনঃ Headline Bullet খোকসা উপজেলায় করোনায় আক্রান্ত একদিনে সর্বোচ্চ ১৫ জন! Headline Bullet রামমন্দির মামলার রায় দেওয়া সাবেক প্রধান বিচারপতি করোনায় আক্রান্তঃ Headline Bullet মর্ডানা একডোজ করোনা টিকার দাম ৩২/৩৭ডলার করতে চাইঃ Headline Bullet তিন কিশোরী ধর্ষনঃধর্ষকসহ দুইসহযোগী গ্রফতারঃ Headline Bullet বরগুনায় নারী ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ: Headline Bullet গাইবান্ধায় ৭৭ পিচ ইয়াবা সহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার: Headline Bullet মেহেরপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের ফলোআপ রিপোর্ট নেগেটিভ: Headline Bullet শেখ কামালের জন্মদিনে মেহেরপুর যুবলীগের আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল:

কুষ্টিয়া জেলায় রেকর্ড পরিমাণ জমিতে পেঁয়াজ চাষ

বাজারে পেঁয়াজের দাম চড়া থাকায় এবার পশ্চিমের জেলাগুলোতে রেকর্ড পরিমাণ জমিতে পেঁয়াজ চাষ হয়েছে। চাষিরাও বাম্পার ফলন আশা করছে।

ইতিমধ্যে আগাম চাষ করা হালি পেঁয়াজ উঠতে শুরু করেছে। এতে দাম কিছুটা কমেছে। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের যশোর আঞ্চলিক অফিস সূত্রে জানা যায়, চলতি রবি মৌসুমে যশোর জেলায় ১ হাজার ৪৪০ হেক্টরে, ঝিনাইদহে ৮ হাজার ৬৫০ হেক্টরে, মাগুরায় ৯ হাজার ১৫ হেক্টরে, কুষ্টিয়ায় ১২ হাজার ১৪০ হেক্টরে, চুয়াডাঙ্গায় ৯৫০ হেক্টরে ও মেহেরপুরে ২ হাজার ২৫ হেক্টরে পেঁয়াজ চাষ হয়েছে। লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৩ হাজার ৮১১ হেক্টর বেশি জমিতে পেঁয়াজ চাষ হয়েছে। মাগুরা ও ঝিনাইদহ জেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, কোনো কোনো মাঠে শুধু পেঁয়াজ আর পেঁয়াজ। চাষিরা খেত পরিচর্যায় ব্যস্ত। ইতিমধ্যে আগাম চাষ করা পেঁয়াজ উঠতে শুরু করেছে। মঙ্গলবার দেশের অন্যতম প্রধান পেঁয়াজের হাট ঝিনাইদহের শৈলকুপায় পাইকারি প্রতি কেজি মুড়িকাটি পেঁয়াজ ৭৫ টাকা থেকে ৮০ টাকা দরে বিক্রি হয়। আর নতুন ওঠা হালি পেঁয়াজ ১০০ টাকা থেকে ১০২ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়। পাইকারি বাজারে এক সপ্তাহের ব্যবধানে কেজিপ্রতি ৫০ টাকা পর্যন্ত দাম কমেছে। খুচরা দাম কমেছে কেজিপ্রতি ৩০-৪০ টাকা। ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলার সোন্দাহ গ্রামের চাষি হাবিবর রহমান জানান, গত বছর সাড়ে পাঁচ বিঘাতে পেঁয়াজ চাষ করেন। বিঘাপ্রতি ৮০ মণ করে ফলন হয়েছিল। পেঁয়াজ ওঠার পর দাম ৭০০/৮০০ টাকা ছিল। সর্বশেষ তিনি তিন মণ পেঁয়াজ ৮ হাজার টাকা মণ দরে বিক্রি করেন। ভালো লাভ হয়েছিল। এবারো সাড়ে পাঁচ বিঘাতে পেঁয়াজ চাষ করেছেন। শৈলকুপা উপজেলা কৃষি অফিসার সনজয় কুমার কুন্ডু বলেন, এ উপজেলায় ৭ হাজার ১০০ হেক্টরে পেঁয়াজ চাষ হয়েছে। ১ লাখ ৪০ হাজার টন পেঁয়াজ উৎপাদন হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।


     এই বিভাগের আরো খবর